Break News

Advertisements

LATEST POSTS

নভেম্বর -২০২২ এ AMIE পরীক্ষা দিবেন যারা তাদের জন্য নোটিশ

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)

শহীদ প্রকৌশলী ভবন, আইইবি সদর দফতর,
রমনা, ঢাকা -১০০০

বিজ্ঞপ্তি ঃ

সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানাে যাচ্ছে যে, যাদের পরীক্ষার রােল নম্বর ১০০০০ বা তার উপরে হবে তারা পরীক্ষার হলে নীল খাতা ব্যবহার করবেন। Engineering Drawing পরীক্ষার সময়ও নীল ড্রইং সীট ব্যবহার করবেন। উল্লেখ্য, প্রতি পরীক্ষার দিনগুলিতে কক্ষ নম্বর পরিবর্তন হয়। তাই পরীক্ষার কক্ষে ঢুকার পূর্বে নােটিশ বাের্ডে Room Arrangement দেখে আপনার রােল নম্বর অনুযায়ী নির্ধারিত কক্ষে প্রবেশ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলাে।

আদেশক্রমে কর্তৃপক্ষ

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)

শহীদ প্রকৌশলী ভবন, আইইবি সদর দফতর,
রমনা, ঢাকা -১০০০

বিজ্ঞপ্তি ঃ

বিজ্ঞপ্তি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনষ্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) কর্তৃক পরিচালিত ১৯/১১/২০২২ তারিখ হতে অনুষ্ঠিতব্য অক্টোবর, ২০২২ টার্মের ঢাকা কেন্দ্রের এএমআইই পরীক্ষাসমূহ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডঃ জামিলুর রেজা চৌধুরী পুরকৌশল ভবনের ২য় তলায় কক্ষ নং- ২০৬, ২০৭ এবং । ২০৮ (পূর্ব পাশে) এ অনুষ্ঠিত হবে। 

 আদেশক্রমে কর্তৃপক্ষ

Read more »

IEB এর অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রোগ্রামসমূহ

IEB স্বীকৃত বা অনুমোদিত বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রাম রয়েছে মোট ৩৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের। নিম্নোক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের  নির্দিষ্ট বিভাগ বা ডিপার্টমেন্ট থেকে বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করলে সরাসরি IEB এর মোম্বারশিপ পাবার জন্য আবেদন করা যাবে। [বি:দ্র: নামের পূর্বে ইঞ্জিনিয়ার পদবি বসাতে হলে নিম্নোক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করতে হবে।]

০১। অ্যাসোসিয়েট মেম্বার ইনস্টিটিউশন ওফঃ ইঞ্জিনিয়ার্স (AMIE)

ঠিকানা: ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (IEB)
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • মেকানিক্য়াল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (ChE)

০২। আহ্ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (AUST)

ঠিকানা: ঢাকা বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

০৩। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (BAU)

ঠিকানা: ময়মনসিংহ, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কৃষি
  • ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং (FE)

০৪। বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (BUET)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • মেকানিক্য়াল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (ChE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • মেটাল্লুরজিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • নেভাল আর্চ. এন্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)

০৫। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ টেক্সটাইল (BUTEX)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং

০৬। চিটাগাং ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (CUET)

ঠিকানা: চিটাগাং, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • মেকানিক্য়াল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)

০৭। ঢাকা ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (DUET)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সমস্ত বিভাগ

০৮। ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি (IUT)

ঠিকানা: গাজীপুর, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কর্ক ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (CIT) {কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)}
  • মেকানিক্য়াল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং (CEE)

০৯। খুলনা ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (KUET)

ঠিকানা: খুলনা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সমস্ত বিভাগ

১০। খুলনা ইউনিভার্সিটি (KU)

ঠিকানা: খুলনা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ECE)

১১। রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (RUET)

ঠিকানা: রাজশাহী, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সমস্ত বিভাগ

১২। শাহজালাল ইউনিভার্সিটি অফ সাইন্স এন্ড টেকনোলজি (SUST)

ঠিকানা: সিলেট, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং (IPE)
  • কেমিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড পলিমার সাইন্স (CEP)
  • সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং (CEE)

১৩। আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশ (AIUB)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রনিক এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ECE)
  • কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং (CoE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

১৪। আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি অফ সাইন্স এন্ড টেকনোলজি (AUST)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (TE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং (IPE)
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

১৫। ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি (BracU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ECE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

১৬। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (DIU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ETE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (TE)

১৭। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (DIU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

১৮। ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি (EWU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ETE)
  • ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ICE)

১৯। ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি (EU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

২০। গ্রীন ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ (GUB)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

২১। ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (IUB)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ETE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং (CEN)

২২। ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি চিটাগাং (IIUC)

ঠিকানা: চিটাগাং, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (CCE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

২৩। ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ বিসনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজি (IUBAT)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

২৪। মাওলানা ভাসানী সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি (MBSTU)

ঠিকানা: টাঙ্গাইল, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (TE)

২৫। মিলিটারি ইনস্টিটিউট অফ সাইন্স এন্ড টেকনোলজি (MIST)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • ইলেকট্রিকাল, ইলেকট্রনিক এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (EECE)
  • মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME)
  • আইরনাউটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (AE)

২৬। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি (NSU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং (CEE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ETE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

২৭। প্রিমিয়াসিয়া ইউনিভার্সিটি (PAU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (TE)

২৮। স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (SUB)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)

২৯। সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি (SEU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (TE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

৩০। সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (SUB)

ঠিকানা: চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)

৩১। ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (UIU)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)

৩২। ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিক (UAP)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • ইলেকট্রিকাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (EEE)
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE)

৩৩। ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ULAB)

ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
IEB স্বীকৃত ডিপার্টমেন্ট:
  • কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (CSE)
  • ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ETE)
Read more »

AMIE ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য গুরত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর

০১। আমার ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স শেষ, এখন রেজাল্ট এর জন্য অপেক্ষায় আছি। আমি এই টার্মে AMIE কোর্সে ভর্তি হতে পারবো কি?

— ভর্তির সময় শেষ হবার আগেই যদি রেসাল্ট পেয়ে যান তাহলে এই টার্মেই ভর্তি হতে পারবেন। এজন্য আপনার অষ্টম পর্বের মার্কশিট লাগবে।

০২। আমি ২০১৪ সালে HSC পরীক্ষা দিয়েছি। আমি কি ভর্তি হতে পারব?

— আপনি যেই সালেই পাশ করেননা কেন, সমস্যা নেই। ভর্তি হতে পারবেন, তবে দুই বছর টেকনিক্যাল বা ইঞ্জিনিয়ারিং সেক্টরের যেকোনো কাজের অভিজ্ঞতার সার্টিফিকেট থাকতে হবে। 

০৩। AMIE তে ভর্তির জন্য IEB এর দু'জন ফেলো/মেম্বারের রিকমেন্ডেশন লাগে এটা কিভাবে পেতে পারি? [বি. দ্র. আমার পরিচিত কেউ নেই মেম্বারশীপ প্রাপ্ত।]

— IEB এর যে সেন্টারে ভর্তি হতে চান সেখান থেকেই নিতে পারবেন।

০৪। আমি কম্পিউটারে ডিপ্লোমা করেছি আমি কি ইলেক্ট্রিক্যালে AMIE করতে পারবো?

—হ্যা পারবেন। শুধু ইলেক্ট্রিক্যাল নয়, আপনার ইচ্ছা অনুয়ায়ী যে কোনোটাতেই ভর্তি হতে পারবেন।

০৫। আমি টেক্সটাইলে ডিপ্লোমা করেছি তাহলে আমি কোনটাতে ভর্তি হবো, বিস্তারিত বলুন।

— AMIE তে ভর্তির সময় কোনো ডিপার্টমেন্ট সিলেক্ট বা চয়েছ করার অপশন থাকেনা। পরীক্ষা দেয়ার জন্য যখন রেজিস্ট্রেশন করবেন, তখন যেই ডিপার্টমেন্টের সাবজেক্ট চয়েজ করবেন, সেই ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থী ধরা হবে।

০৬। আমি ঢাকা কেন্দ্রে ভর্তি হতে চাই, কিন্তু রাজশাহী কেন্দ্রে ভর্তির জন্য ডকুমেন্টস জমা দিতে চাই, করা যাবে কি?

— হ্যা পারবেন। যেকোন কেন্দ্রে ভর্তি হওয়া যাবে, আবার যেকোন কেন্দ্রে পরীক্ষাও দিতে পারবেন।

০৭। আমি টেক্সটাইলে ডিপ্লোমা করেছি, কিন্তু AMIE তে টেক্সটাইল নেই। তাহলে আমি ME অথবা CE এর কোনটিতে করলে ভাল হবে?

— কেমিক্যাল (CE) পড়লেই সর্বত্তম হবে। কারণ টেক্সটাইল এর সাথে কেমিক্যাল এর অনেক মিল রয়েছে।

০৮। AMIE তে কবে থেকে ভর্তি শুরু হবে এবং কিকি লাগবে ভর্তি হতে?

— প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি ও অগাস্ট মাসে ভর্তি কার্যক্রম চলে। কি কি লাগবে এ বিষয়ে 
বিস্তাতিত জানতে ভিজিট করুন...

০৯। AMIE এর কচিং সেন্টার কোথায় কোথায় আছে?

— ঢাকা, গাজিপুর, রাজশাহীসহ আরো অনেক জেলা শহরে বিভিন্ন কচিং সেন্টার আছে।

১০। IEB এর নিজস্ব কোনো কচিং বা ক্লাসের ব্যাবস্থা আছে কি?

— হ্যা আছে, IEB এর নিজস্ব তত্যাবধানে বুয়েট এর প্রফেসরগণ ক্লাস নিয়ে থাকেন।

১১। AMIE পাস করে কি নামের পূর্বে ইঞ্জিনিয়ার লিখা যাবে?

— হ্যা অবশ্যই ইঞ্জিনিয়ার লিখা যাবে।

১২। AMIE করলে কি BCS দেওয়া যায় ? কোন কোন ক্যাডারে দেয়া যাবে?

— প্রফেশনাল ক্যাডার এবং জেনারেল ক্যাডার, উভয়টাতেই দেয়া যাবে।

১৩। কেউ বলুন প্লিজ  ভর্তি হওয়ার পর কত দিনের মধ্যে পাশ করতে হবে, কোন টাইম লিমিট আছে কী?  । (ইলেক্ট্রিক্যাল) সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ কত সাবজেক্ট এক সাথে পরীক্ষা দেয়া যায়।  আর সেকশন এ,  সব সাবজেক্ট কম্পিলিট করার আগে কি সেকশন বি এর কোন সাবজেক্টে পরীক্ষা দেয়া যাবে?

— ভর্তি হওয়ার পর আপনি সর্বোচ্চ ১৫ বছর সময় পাবেন পাশ করার জন্য। প্রতি টার্মে সর্বনিম্ন ১ টা এবং সর্বোচ্চ ৪ টা সাবজেক্ট একসাথে পরীক্ষা দেয়া যায়। সেকশন- A এর ১১ টা সাবজেক্ট পাশ করার পর সেকশন- B শুরু করতে পারবেন।

১৪। xভর্তি হবার জন্য কি কোনো ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে?

— না কোনো ভর্তি পরীক্ষা নেই।

১৫। জানতে চাই??? অনেক সার্কুলারে উল্লেখ থাকে,, স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করতে হবে, এমন সার্কুলারে কি Amie সার্টিফিকেটধারীরা আবেদন করতে পারবে???

— হ্যা পারবেন ১০০%

১৬। যদি একটা পরীক্ষা দেয়ার পর ২ বছর গ্যাপ হয় সেহ্মেত্রে কি করনীয়? আমাকে কি মাঝখানের ২ বছরের জন্য কোনো ফি দিতে হবে?? আর যদি এই ২ বছের কোনো ফি না দেই,তাহলে কি পরীক্ষা দেওয়া যাবে..??

— যে কয় বছরের গ্যাপ হবে তার জন্য ১০০০ টাকা করে বাৎসরিক চাঁদা দিতে হবে। তবে আপনি চাঁঁদা না দিয়েও চলতি টার্মের পরীক্ষা দিতে পারবেন। কিন্তু সেকশন-A থেকে B তে উঠার সময় অবশ্যই ফি পরিশোধ করতে হবে। আর যদি সেকশন B তে থাকা অবস্থায় গ্যাপ দেন তাহলে ফি পরিশোধ না করলে সার্টিফিকেট তুলার সময় বকেয়া ফি ধার্য হবে। তাই পরিশেধ করে দেয়াই উত্তম হবে।

১৭। ভর্তির জন্য কি সাইন্স ব্যাকগ্রাউন্ড থাকতে হবে?

— ডিপ্লোমা থেকে ভর্তি হলে সাইন্স লাগবেনা, তবে বি.এস.সি থেকে আসলে অবশ্যই সাইন্স  ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে আসতে হবে।

১৮। পাশকৃত AMIE ইঞ্জিনিয়ারদের কোন কেডিট প্রদান করা হয় কি...?

— AMIE তে কোনো ক্রেডিট সিস্টেম নেই। এখানে ২ টি সেকশন, যা সমপন্ন করলে BSc সমমান হয়, তবে একে কোনো ক্রেডিট এর সাথে হিসাব করা হয়না।

১৯। এখানে তো ক্লাস হয় না যারা সিভিল ইন্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়বে তারা কিভাবে প্রাকটিকাল জিনিস গুলো শিখবে? বা চাকরির ক্ষেত্রে কতটুকু সফল হবে?

— গতানুগতিক ক্লাস হয়না তবে, IEB কর্তৃক কচিং এর ব্যাবস্থা করা হয়। প্রাক্টিক্যাল শিক্ষা বা ক্লাস নেই তারপরো কিভাবে AMIE এর শিক্ষার্থীরা বিশ্বমানের ইন্জিনিয়ার হতে পারে, এমন প্রশ্ন সবার মনেই এসে থাকে। প্রকৃতপক্ষে AMIE কোর্সটি বিশ্বের অধীকাংশ দেশেই পরিচালিত হয়, আর এই কোর্সটি বিশেষ করে ইন্জিনিয়ারিং সেক্টরে কর্মরত চাকুরিজীবিদের জন্য জিজাইন করা হয়েছে। যে কারণে AMIE এর শিক্ষার্থীগণ অন্যান্য গতানুগতিক ভার্সিটির শিক্ষার্থীদের চেয়ে অধিক বাস্তবিক প্রাকটিকাল জ্ঞান অর্জন করে থাকে।

২০। আমার সিজিপিএ -২.৯৫। আমি কি ভর্তি হতে পারবো?

— না, ভর্তির জন্য নূন্যতম সিজিপিএ ৩.০০ পয়েন্ট পেতে হবে।

২১। ডিপ্লোমা শেষ করেছি,, AMIE এ মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি হলে BSC করতে কত বছর লাগতে পারে । যাঁরা এখানে পড়তেছেন বা বিএসসি শেষ করেছেন অনুগ্রহ করে বললে helpful হতো।

— প্রতি টার্মে ৪ টা করে সাবজেক্টে পরীক্ষা দিলে ৩.৫ বছর সময় লাগবে।

২২। AMIE থেকে পাশ করার পর AE পোস্টে আবেদন করার ক্ষেত্রে কী সীমাবদ্ধতা ফেইস করেছেন ? আর যারা এখনো AMIE তে আছেন তারা কী সমস্যা ফেইস করছেন ?

— না আজ পর্যন্ত তেমন কোনো সমস্যার কথা জানা যায়নি। বাস্তবে AMIE সার্টিফিকেট ধারীদের অনেক ট্যালেন্ট স্টুডেন্ট হিসেবেই চাকরি ক্ষেত্রে মূল্যায়ন করার কথা শুনা যায়।

২৩। আমি সিভিল থেকে ৭ম সেমিস্টার শেষ করেছি, এখন গাজিপুর এ ইন্টার্নি করবো। আমার মুল রেজাল্ট দেয়া তো দেরি আছে। এখন এই ফেব্রুয়ারিতে কি AMIE ভর্তি হতে পারবো? নাকি নেক্সট আগস্ট এ ভর্তি হতে হবে?

— ভর্তির সময় শেষ হবার আগেই যদি অষ্টম পর্বের রেসাল্ট পেয়ে জান তবে ভর্তি হতে পারবেন। 

২৪। AMIE তে পড়ার মান কেমন? এটার মান কি অন্যান্য প্রাইভেট ভার্সিটির থেকেও ভালো? যদি কেউ জানেন plz জানাবেন

— জ্বী, মান অনেক ভালো। বের হতে পারলে অনেক মুল্য পাবেন। প্রাইভেট ভার্সিটির থেকে বেশি মূল্যায়ণ পাবেন চাকরির ক্ষেত্রে।

২৫। ১. AMIE কোর্স কমপ্লিট করে বিদেশে উচ্চশিক্ষার সুযোগ কেমন ?  

২. আমি খুব ভালভাবে পরাশোনা করেই ডুয়েট এডমিশনে অংশগ্রহন করেছিলাম , সেক্ষেত্রে AMIE কোর্স প্লেন আমার জন্য অন্যদের তুলনায় সুবিধাজনক হবে কি ? সেক্ষেত্রে কতটা সুবিধাজনক হবে ? 

৩. অতিরিক্ত ক্রেডিট কমপ্লিটের মাধ্যমে কোর্স  সর্ট করা পসিবল কি ?

— আই.ই.বি এর বৈদেশিক অঙ্গসংগঠনভুক্ত যে কোনো দেশে সরাসরি AMIE সার্টিফিকেট শো করে উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তি হতে পারবেন। তাছাড়া UGC কর্তৃক BSC ইন্জিনিয়ারিং এর সমমান সার্টিফিকেট উত্তলন করতে পারবেন। AMIE তে কোনো ক্রেডিট সিস্টেম নেই। নিয়ম অনুযায়ি প্রতি টার্মে সর্বোচ্চ ৪টি করে সাবজেক্ট এ পরীক্ষা দিয়ে ৩.৫ বছরে কোর্স শেষ করতে পারবেন।  এর বাইরে কোর্স শর্ট করার কোনো উপায় নেই।

২৬। AMIE এর স্টুডেন্টদের জন‍্য যদি বুয়েটের স‍্যারেরা কোনো কোচিং খুলতো তাহলে অনেক স্টুডেন্ট সহজেই পাশ করে বের হয়ে যেতো...( কস্ট বেশি নিলেও তেমন সমস‍্যা ছিলোনা...

— জ্বি, বুয়েটের স‍্যারেরা কচিং করিয়ে থাকেন। প্রতি কোর্সের জন্য ২২০০ টাকা করে ফি দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। IEB এর রমনা শাখার তত্যাবধানে এই কচিং পরিচালিত হয়ে থাকে।

আরো পড়ুন....

Read more »

AMIE কি? কোথায়? কাদের জন্য?

AMIE কি?
AMIE = Associate Membership of the Institution of Engineers

AMIE হলো ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (IEB) পরিচালিত একটি পরীক্ষার নাম, যে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে, আইইবি-র এসোসিয়েট মেম্বারশিপ দেওয়া হয় এবং একই সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং এ গ্রাজুয়েশন কমপ্লিটের সার্টিফিকেট দেওয়া হয়, যার মাধ্যমে আপনি নিজেকে একজন "প্রকৌশলী" হিসেবে গড়ে তোলার সুযোগ পেয়ে থাকেন । এএমআইই(section-A এবং section-B) পাশকে "বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এর সমমান" হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে এবং বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং যোগ্যতার সকল সরকারী চাকুরীসমূহে এএমআইই পাশ করা প্রকৌশলী আবেদনের সুযোগ পেয়ে থাকেন।

AMIE তে কখন কোন বিষয়ে ভর্তি হওয়া যাবে?

কারা ভর্তি হতে পারবে?
★ Diploma in Engineering এর সকল ছাত্র-ছাত্রী। তবে diploma CGPA 3.00 থাকতে হবে।
★ Science থেকে HSC পাশের পর ২ বছর যেকোনো Engineering sector এ জব করলে ভর্তি হতে পারবে।

কোন কোন বিষয়ে AMIE করা যায়?
AMIE তে নিচের চারটি ডিপার্টমেন্টের যেকোনোটিতে ভর্তি হতে পারবেন। আপনি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং  যেই টেকনলজিতে পড়বেন তার উপর নির্ভর করবে AMIE তে কোন বিষয়ে পড়তে পারবেন।
    1. Electrical Engineering (B.Sc)
    2. Mechanical Engineering (B.Sc)
    3. Civil Engineering (B.Sc)
    4. Chemical Engineering (B.Sc)
আরো পড়ুন....
কখন/ কিভাবে ভর্তি হতে পারবো?
★ AMIE তে প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি এবং আগস্ট মাসে ভর্তি করে।
★AMIE এর যেকোনো শাখায় ভর্তি হতে পারবেন। AMIE এর চারটি শাখা রয়েছে, যথা: ঢাকা শাখা, রাজশাহী শাখা, চট্রোগ্রাম শাখা এবং খুলনা শাখা।
★ ভর্তির পর শাখা পাল্টাতে চাইলে পাল্টানো যাবে।

কতো দিন লাগবে AMIE (BSC) শেষ করতে?

★প্রতি সেমিস্টারে যদি ৪টি করে কোর্স/ সাবজেক্ট নেন এবং কোনো পরীক্ষায় যদি ড্রপ বা ফেইল না করেন তাহলে সর্বনিম্ন সাড়ে তিন বছর লাগবে। তবে যদি কোর্স বা সাবজেক্ট কম করে নেন তাহলে বেশি সময় লাগবে। (বি:দ্র: আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী প্রতি পরীক্ষায় ১ থেকে ৪ টি সাব্জেক্ট নিতে পারবেন।)

AMIE তে ভর্তি হতে কি কি লাগবে ও কি করতে হবে?

ভর্তি হতে যা যা লাগবে:
★ ভর্তি ফি- (৭,৫০০/- , বার্ষিক চাঁদা- ১,০০০/- ও বার্ষিক ছাত্রকল্যাণ তহবিল ফি-৫০/-)= সর্বোমোট ৮৫৫০/-
★ পাসপোর্ট সাইজ ২ কপি ছবি
★S.S.C সর্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি (আইইবি'র Member/Fellow দ্বারা)
★ডিপ্লোমা পাশের সর্টিফিকেট (আইইবি'র Member/Fellow দ্বারা সত্যায়িত)
★ডিপ্লোমা পাশের Grade Sheet/ Transcript (আইইবি'র Member/Fellow দ্বারা সত্যায়িত)

ভর্তি পক্রিয়া:
★ভর্তি ফরম এবং ফি জমা দেওয়ার জন্য আইইবি'র Website থেকে ভর্তি ফ্রম Download করে  নিতে হবে তবে সরাসরি IEB এর যেকোনো শাখা থেকে সরাসরি সংগ্রহ করা যাবে।
★ভর্তির ফরম পূরণ করে নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বা পরিচিত ২ জন IEB সদস্যের Recommendation ( signature) নিতে হবে।
★মার্কেন্টাইল ব্যাংক এর যে কোন শাখায় আইইবি'র পে-স্লিপ ( Pay Slip) এর মাধ্যমে টাকা জমা দিতে হবে।
★টাকা জমা দেয়ার পর IEB এর যে শাখায় ভর্তি হতে চান, সে শাখায় উপরোক্ত document ও Pay Slip এর কপি আবেদন পত্রের সাথে যুক্ত করে জমা দিতে হবে।

AMIE তে পড়তে মোট কত খরচ লাগবে?

ভর্তির সময় লাগবে: (প্রথমবার)
★ভর্তি ফি- ৭,৫০০/- টাকা
★বার্ষিক চাঁদা- ১,০০০/- টাকা
★বার্ষিক ছাত্রকল্যাণ তহবিল ফি-৫০/- টাকা
সর্বোমোট ৮৫৫০/- (আট হাজার পাঁচশত পঞ্চাশ টাকা)
আইইবি'র পে-স্লিপ ( Pay Slip) এর মাধ্যমে মার্কেন্টাইল ব্যাংক এর যে কোন শাখায় টাকা জমা দিয়ে আইইবি'র যে কোন কেন্দ্র ভর্তি হওয়া যাবে।
আরো পড়ুন....
পরীক্ষার ফি:
★ প্রতি বিষয় (subject) এর জন্য = ১২০০ টাকা, যে সেমিস্টারে যে কয়টি সাবজেক্টে পরীক্ষা দিবেন সে হিসেবে প্রতি বিষয়ের জন্য ১২০০ টাকা করে ফি দিতে হবে।
section-A তে subject ১১টি এবং section-B তে subject ১১টি। তাহলে মোট ফি (১২০০*২২)=২৬,৪০০ টাকা

অন্যান্য ফি:
★ বার্ষিক চাদা= ১,০০০/= টাকা।
প্রতি semester এ আপনি সর্বোচ্চ চারটি subject এ পরীক্ষা দিতে পারবেন (বছরে ২ সেমিস্টার)। অর্থাৎ আপনার সর্বোনিম্ন সময় লাগবে ৩.৫ বছর। তাহলে মোট বার্ষিক চাদা দিতে হবে= ৩,০০০ টাকা। ( ১ম বছরের চাদা ভর্তির সময় নিয়ে নিয়েছে)
★ বার্ষিক ছাত্রকল্যাণ তহবিল ফি-৫০। ভর্তি পরবর্তী ৩ বছরের ফি= ১৫০ টাকা
★ প্রতি semester এ গ্রেটশিট ফি= ৫০০ টাকা। তাহলে ৭ semester এর মোট ফি= ৩,৫০০ টাকা।
★ID card ফি= ১০০ টাকা (প্রথমবার)

অতিরিক্ত ফি:
★ প্রতি সেমিস্টারের পরীক্ষার জন্য ফ্রমফিলাপ করতে হয়। ফ্রম ফিলাপ করতে দেরি করলে জরিমানা (লেট ফি)= ১০০০ টাকা।
★যদি আপনি প্রতি সেমিস্টারে কম কোরে subject নেন তবে আপনার সময় বেশি লাগবে। এতে semester ফি এবং বার্ষিক চাদার পরিমাণ বাড়বে।

★অতএব ৩.৫ বছরের মধ্যে complete করতে পারলে মোট খরচ পরবে = (৮,৫৫০+ ২৬,৪০০+ ৩,০০০+ ১৫০+ ৩,৫০০+ ১০০) = ৪১,৭০০ টাকা। বই, খাতা, কচিং ফি(যদি আপনি করেন) ইত্যাদি ব্যাক্তিগত খরচ আপনার উপর নির্ভর করবে।

AMIE তে ক্লাস ও পরীক্ষা হয় কিভাবে?

ক্লাস/ পড়াশোনা:
★AMIE তে কোনো একাডেমিক ক্লাসের ব্যাবস্থা নেই। তবে IEB(AMIE) কর্তৃক কচিং করানো হয়। প্রতি Subject এর কচিং ফি ২২০০ টাকা করে দিয়ে থাকে। আপনি যদি কচিং করন তাহলে এই ফি দিতে হবে, কচিং না করলে দিতে হবেনা।

★section-A তে একটি কম্পিউটার ট্রেনিং কোর্স এর ব্যাবস্থা করা হয় (AMIE কর্তৃক)। এই কোর্সে  সবাইকেই বাধ্যতামূলকভাবে অংশ নিতে হবে। অংশ না নিলে section-B তে উত্তীর্ণ হওয়া যাবেনা।
★দেশের বিভিন্ন স্থানে AMIE এর কচিং সেন্টার রয়েছে, ভাল প্রিপারেশনের এর জন্য অনেকেই কচিং করে থাকে।

পরীক্ষা পদ্ধতি: 
★মোট ৪টি ইউনিভার্সিটিতে পরীক্ষা নেয়া হয়। ভার্সিটিগুলো হলো: BUET, CUET, KUET, RUET
★একই প্রশ্নে, একই সময়ে সবগুলো সেন্টারে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
★পরীক্ষার প্রশ্ন BUET থেকে করা হয়।

গোল্ড মেডেল:
★ section-A এবং section-B মিলিয়ে CGPA-3.80 বা তার বেশি কোনো শিক্ষার্থী পেলে বাংলাদেশ সরকার প্রধান বা রাষ্ট্রপতি কর্তৃক গোল্ড মেডেল প্রাপ্ত হবেন।

AMIE থেকে BSC Engineer এবং বিভিন্ন University থেকে BSC Engineer হওয়ার মধ্যে পার্থক্য:

বিভিন্ন University থেকে বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ার এবং AMIE থেকে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার মধ্য বেশ কিছু দৃশ্যমান পার্থক্য রয়েছে। নিচে পার্থক্য তুলে ধরা হলো:

★শাহজালাল বিঙ্গান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এর IEB অনুমদন না থাকায় BSC Engineering করার পরেও নামের পূর্বে Engineer পদবি বসাতে পারেনা। অথচ AMIE থেকে BSC করলে নামের পূর্বে Engineer পদবি বসাতে পারে।

আরো পড়ুন.....

★সকল University এর সকল ডিপার্টমেন্টে ক্রেডিট সিস্টেম রয়েছে। কিন্তু AMIE এর কোনো ক্রেডিট সিস্টেম নেই।

কোথায় পড়েন? প্রশ্নের উত্তরে সবাই ভার্সিটির নাম বলে। আর আমরা বলি AMIE তে পরি। এখানে উল্লেখ্য যে, AMIE বা IEB কোনো ভার্সিটি নয়, AMIE একটি পরীক্ষার নাম আর IEB একটি সংস্থার নাম।

আরো পড়ুন....

★কেউ পাবলিক এ পড়ে আবার কেউ প্রাইভেট এ পড়ে। আপনি কিসে পড়েন? এই প্রশ্নের উত্তর হলো: যদি IEB এর অধিনে AMIE করেন তবে উত্তর হবে, "পাবলিকে পড়ি" । আর যদি কোনো প্রাইভেট ভার্সিটির আন্ডারে AMIE করেন তবে উত্তর হবে প্রাইভেট এ পড়ি।

বি.দ্র. AMIE থেকে সেকশন-এ এবং সেকশন-বি সম্পন্ন করার পর প্রাপ্ত Certificate এবং যে কোনো ইউনিভার্সিটি থেকে প্রাপ্ত বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং Certificate এর মান সমান।

AMIE থেকে BCS Cadre বা B.Sc পোস্টে Apply করা যাবে কি?

AMIE থেকে BCS Cadre:
★AMIE থেকে BCS দেয়া যাবে কিনা?
— এটাএকটা কমন প্রশ্ন, প্রায়ই দেখা যায় শিক্ষার্থীরা এই প্রশ্নটি করে থাকেন। উত্তরটাও কমন: হ্যা অবশ্যই বি.সি.এস পরীক্ষা দিতে পারবেন।
★ টেকনিক্যাল/ প্রফেশনাল ক্যাডার পোষ্টে পরীক্ষা দেয়া যাবে। যেমন: সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়লে  সিভিল ডিপার্টমেন্টের পোস্টগুলোতে অনুরুপ ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়লে  ইলেকট্রিক্যাল ডিপার্টমেন্টের পোস্টগুলোতে আবেদন করতে পারবেন।
★প্রশাসন, পুলিশ, আনসার, পররাষ্ট্রসহ সাধারণ ক্যাডারের সবগুলোতেই আবেদন করতে পারবেন।
★বিসিএস এ অংশগ্রহণ করতে হলে AMIE এর AওB section পাশ করতে হবে।
★উদাহরণস্বরূপ 41th BCS Circular টা দেখুন


PDB/ REB/ PGCB/ NESCO/ DESCO...... এইসবে কি B.Sc পোষ্টে gbsin করা যাবে?
★ PDB/ REB/ PGCB/ NESCO/ DESCO/ PDB সহ সরকারী/ আধা-সরকারি/ শ্বায়িত্বস্বাশিত  সকল চাকরীতে বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং বা সমমানের পোস্টে আবেদন করা যাবে।
★যেকোনো বেসরকারী প্রতিষ্ঠানেও AMIE স্টুডেন্টদের বি.এস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং সমমানের পদে নিয়োগ দিতে বাধ্য থাকবেন।
আরো পড়ুন....

Read more »

IEB Bangladesh এর বিস্তারিত বিবরণ

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (IEB)
প্রতিষ্ঠাকাল: ১৯৪৮
ওয়েবসাইট: http://www.iebbd.org/

আইইবি এর পূর্ণরূপ: Institution of Engineers Bangladesh

প্রতিষ্ঠার ইতিহাস:

ভারত উপমহাদেশে ব্রিটিশ সরকারের শাসন পতন ঘটার পর যখন পাকিস্তান স্বাধীন হয় তখন কয়েকজন উচ্চ পদস্থ  ইঞ্জিনিয়ার, সমগ্র পাকিস্তানের ইঞ্জিনিয়ারদের স্বার্থ রক্ষার জন্য ইঞ্জিনিয়ারদের একটি প্রফেশনাল ফোরাম প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন। ফলশ্রুতিতে ১৯৪৮ সালে Engineers Institution, Pakistan প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, যার সদর দপ্তর ছিল ঢাকা, বাংলাদেশে। এরপর তৎকালিন পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল ৭ই মে, ১৯৪৮ সালে ঢাকাতে Engineers Institution এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এরপর ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে জয়ী হবার পর Engineers Institution, Pakistan (IEP) থেকে পরিবর্তন করে Engineers Institution, Bangladesh (IEB) নাম করণ করা হয়।

IEB সোসাইটিস রেজিস্ট্রেশন অ্যাক্ট ১৮৬০ দ্বারা নিবন্ধিত, যা বাংলাদেশের ইঞ্জিনিয়ারদের সংগঠন। IEB তে বর্তমানে সকল Engineering Department অন্তর্ভুক্ত। প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই IEB প্রকৌশল ও বিজ্ঞানের জ্ঞান এবং অণুশীলন প্রচার করছে। IEB এর প্রধান লক্ষ্য হল ইঞ্জিনিয়ারদের পেশাদার শ্রেষ্ঠত্ব নিশ্চিত করা এবং দেশের ইঞ্জিনিয়ারদের ক্রমাগত পেশাদারী উন্নয়ন সাধন করা। এটি দেশের ও বিদেশের অন্যান্য পেশাজীবী সংগঠনের ঘনিষ্ঠতা স্থাপন এবং সহযোগিতার কাজ নিরলসভাবে করে যাচ্ছে।

সদস্যপদ পাবার জন্য যা করণীয়:

IEB এর সদস্য হতে হলে এর আওতাভুক্ত দেশী/বিদেশী সরকারি/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে কোনও ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনে (IEB - অণুমোদিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে BSc Engineering অথবা, Master of Science in Engineering) সমপন্ন করার পর এখানে সদস্য হতে পারেন। বর্তমানে IEB এর সদস্য সংখ্যা প্রায় ৪১,৫৪৫ জন। যাদের মধ্যে প্রায় ৩০% ফেলো, ৬০% সদস্য এবং বাকিরা সহযোগী সদস্য।

বাংলাদেশে অনেক সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ায়, সকল বিশ্ববিদ্যালয় IEB কর্তৃক স্বীকৃত না। ঐতিহ্যগতভাবে IEB এর ক্রীম হল BUET, DUET, KUET, CUET ও RUET। উদাহরণ হিসেবে বলতে পারি, চট্টগ্রাম ইউনিভার্সিটিতে EEE পড়ায়, কিন্ত সেটা IEB স্বীকৃত না। অনেক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রিও স্বীকৃত না। এজন্য যদি আপনি IEB এর মেম্বার হতে চান তবে অবশ্যই আগে জেনে নিবেন যে প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে চান সেই প্রতিষ্ঠানের IEB অনুমোদন আছে কিনা।

যাহোক আপনার ডিগ্রি যদি স্বীকৃত হয় তবে পাশ করার সাথে সাথেই IEB এর মেম্বার হবার জন্য আবেদন করতে পারবেন, কিন্ত তখন হবেন এসোসিয়েট মেম্বার। চার-পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতা হলে মেম্বার হতে পারবেন। তবে পুনরায় আবেদন করতে হবে। দশ-পনের বছরের অভিজ্ঞতা সাপেক্ষে ফেলো হওয়া যায়। প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা থাকলে সরাসরি মেম্বার বা ফেলো পদেও আবেদন করা যায়।

Read more »

AMIE এর কোনো পরীক্ষার খাতা চ্যালেন্জ করতে কি করা লাগবে?

item-thumbnail
যারা পরীক্ষার খাতা চ্যালেন্জ করতে কত টাকা লাগবে?
প্রতি খাতার জন্য ১০০০ টাকা করে লাগবে। যদি ২টি খাতা চ্যালেন্জ করেন তাহলে ২ হাজার, তিনটা করলে ৩ হাজার......

কয়টা পরীক্ষার খাতা একসাথে চ্যালেন্জ করা যাবে?
আপনি যে কয়টা পরীক্ষায় অংশ নিবেন তার সবগুলোই চ্যালেন্জ করতে পারবেন। 

খাতা চ্যালেন্জ কি অনলাইনে করা যাবে?
না, অনলাইনে চ্যালেন্স করার কোনো ব্যাবস্থা নেই। একটি দরখাস্ত জমা দিতে হবে। দরখাস্তের একটি নমুনা নিচে দেয়া হলো:

পরীক্ষার খাতা চ্যালেন্জ করলে কি রেসাল্ট পরিবর্তন হবার সম্ভাবনা আছে?
খাতা চ্যালেন্জ করে তেমন একটা লাভ হয়না। বেশির ভাগের ক্ষেত্রেই রেসাল্ট পরিবর্তন হয়না। তবে কারো পরীক্ষার খাতা যদি ভুল বসত মার্ক না দেয়া হয়ে থাকে তবে রেসাল্ট পরিবর্ত হবে। কিন্তু মার্ক কম পেয়েছেন বলে চ্যালেন্জ করে কিছু মার্ক বাড়িয়ে নেবেন এমনটি স্বাধারণত হতে দেখা যায়না। AMIE এর খাতা খুব ভালভাবেই দেখা হয়ে থাকে।


Read more »

AMIE Results - April, 2022 Term

item-thumbnail

THE INSTITUTION OF ENGINEERS, BANGLADESH (IEB)
SHAHEED PROKAUSHALI BHABAN, 
HEADQUARTERS, RAMNA, DHAKA-1000 

Results of the Section ‘B’ and Section ‘A’ of the Associate Membership Examinations (April, 2022 Term) of The Institution of Engineers, Bangladesh held in the month of May, 2022 as approved by the Examination Committee, IEB, Dhaka in its meeting held on 21/08/2022 are announced as under: 

Below department's results published.

SECTION A + SECTION B
OLD + NEW

  1. CIVIL ENGINEERING
  2. MECHANICAL ENGINEERING
  3. ELECTRICAL ENGINEERING
  4. ELECTRICAL ENGINEERING
  5. CHEMICAL ENGINEERING  
Download (AMIE) Results - April, 2022 Term
File Formate: (.pdf)
File size: 299 KB
Source: Google Drive
Download Link : <<Click Here>>

Read more »

IEB, আইইবি-র কেন্দ্র, উপ-কেন্দ্র এবং বৈদেশিক শাখাসমূহ

আইইবি-র মোট ১৮টি কেন্দ্র রয়েছে। নিচে তার তালিকা দেয়া হলো:

(১) ঢাকা (১০) ঘোড়াশাল
(২) চট্টগ্রাম (১১) বগুড়া
(৩) খুলনা (১২) গাজীপুর
(৪) রাজশাহী (১৩) নারায়ণগঞ্জ
(৫) পাবনা (১৪) রাঙ্গাদিয়া
(৬)সিলেট (১৫) যশোর
(৭) বরিশাল (১৬) আশুগঞ্জ
(৮) ময়মনসিংহ (১৭) ফরিদপুর
(৯) রংপুর (১৮) দিনাজপুর

আইইবি-র উপ-কেন্দ্রসমুহ

(১) টাঙ্গাইল             (১৭) ফেনী
(২) কাপ্তাই              (১৮) নোয়াখালী
(৩) খাগড়াছড়ি       (১৯) ব্রাহ্মণবাড়িয়া
(৪) কক্সবাজার        (২০) চাঁদপুর
(৫) রাঙামাটি          (২১) ঈশ্বরদী
(৬) কুষ্টিয়া  (২২) ফেঞ্চুগঞ্জ
(৭) কুমিল্লা              (২৩) টঙ্গী
(৮) সিরাজগঞ্জ       (২৪) সাভার
(৯)নওগাঁ                  (২৫) নারায়ণগঞ্জ
(১০)হবিগঞ্জ             (২৬) বড় পুকুরিয়া
(১১)মৌলভীবাজার  (২৭) নীলফামারী
(১২) ভোলা               (২৮) পঞ্চগড়
(১৩) জামালপুর       (২৯) নাটোর
(১৪) তারাকান্দি        (৩০) বাঘাবাড়ি
(১৫) জয়পুরহাট      (৩১) নাটোর
(১৬) পটুয়াখালী

আইইবি-র বৈদেশিক অঙ্গসংস্থাসমূহ:

(১) কাতার               (৬) দুবাই
(২) ব্যাংকক            (৭) মালয়েশিয়া
(৩) কুয়েত              (৮) সিঙ্গাপুর
(৪) ওমান                (৯) যুক্তরাষ্ট্র
(৫) রিয়াদ               (১০) অস্ট্রেলিয়া


Read more »
Older Posts
Home