AMIE কি? কোথায়? কাদের জন্য?

AMIE কি?
AMIE = Associate Membership of the Institution of Engineers
AMIE হলো ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (IEB) পরিচালিত একটি পরীক্ষার নাম, যে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে, আইইবি-র এসোসিয়েট মেম্বারশিপ দেওয়া হয় এবং একই সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং এ গ্রাজুয়েশন কমপ্লিটের সার্টিফিকেট দেওয়া হয়, যার মাধ্যমে আপনি নিজেকে একজন "প্রকৌশলী" হিসেবে গড়ে তোলার সুযোগ পেয়ে থাকেন । এএমআইই(section-A এবং section-B) পাশকে "বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এর সমমান" হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে এবং বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং যোগ্যতার সকল সরকারী চাকুরীসমূহে এএমআইই পাশ করা প্রকৌশলী আবেদনের সুযোগ পেয়ে থাকেন।

কারা ভর্তি হতে পারবে?
★ Diploma in Engineering এর সকল ছাত্র-ছাত্রী। তবে diploma CGPA 3.00 থাকতে হবে।
★ Science থেকে HSC পাশের পর ২ বছর যেকোনো Engineering sector এ জব করলে ভর্তি হতে পারবে।

কোন কোন বিষয়ে AMIE করা যায়?
আপনি ডিপ্লমাতে যেই subject এই পড়েননা কেন, AMIE তে নিচের চারটি subject এর যেকোনোটিতে ভর্তি হতে পারবেন।
★1. Electrical Engineering (BSC)
★2. Mechanical Engineering (BSC)
★3. Civil Engineering (BSC)
★4. Chamical Engineering (BSC)

কখন/ কিভাবে ভর্তি হতে পারবো?
★ AMIE তে বছরে ২ বার (ফেব্রুয়ারি ও আগস্ট মাসে) ভর্তি করে।
★AMIE এর চারটি শাখার যেকনোটিতে ভর্তি হতে পারবেন। শাখা চারটি হলো: ঢাকা শাখা, রাজশাহী শাখা, চট্রোগ্রাম শাখা এবং খুলনা শাখা।
★ ভর্তির পর শাখা পাল্টাতে চাইলে পাল্টানো যাবে।

কতো দিন লাগবে AMIE (BSC) শেষ করতে?
★সেমিস্টার ড্রপ না খেলে সাড়ে তিন বছর লাগবে।





Home